সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০৭:৩৩ অপরাহ্ন

নিউজ অনলাইন বিডি:
নিউজ অনলাইন বিডি পোর্টালে স্বাগতম। আপনার আশেপাশে ঘটে যাওয়া ঘটনার ছবি ও খবর আমাদেরকে মেইল করুন। দেশ ও জাতির কল্যাণে আমাদের সাথেই থাকুন।
ভার্সিটি ভর্তিতে আইসিটি (অধ্যায়-৬)

ভার্সিটি ভর্তিতে আইসিটি (অধ্যায়-৬)

অধ্যায়-৬; মৌলিক অংশ

১) ডেটাবেজ (ঢা,কু, ব-১৬, য-১৭)
পরস্পর সম্পর্কযুক্ত একগুচ্ছ ডেটার সমাবেশকে ডেটাবেজ বলে।
২) রেকর্ড/ Entity (চ-১৬, চ,মা-১৭)
পরস্পর সম্পর্কযুক্তকতগুলো ফিল্ডের সমন্বয়ে রেকর্ড তৈরি হয়।
Entity; হচ্ছে স্বত্বা যা দিয়ে অবজেক্টকে চিহ্নিত করা হয়।
৩) SQL (য-১৬, ব,সি-১৭)
Structured Query Languageবিশ্বের সর্বাধিক জনপ্রিয় কুয়েরি ভাষা।
৪) কুয়েরি / Query (সি-১৬, মা-১৮)
ডেটাবেজ থেকে প্রয়োজনীয় ডেটা শর্ত সাপেক্ষে খুঁজে বের করাকে কুয়েরি বলে।
৫) কুয়েরি ভাষা (দি-১৬, স-১৮)
কুয়েরি করার জন্য যে ভাষা ব্যবহার করা হয় তাই কুয়েরি ভাষা।
৬) ডেটা এনক্রিপশন (রা-১৬, দি,কু,রা,ব-১৭)
ডেটা কোডিং করে পরিবর্তন করে প্রেরণ করাকে ডেটা এনক্রিপশন বলে।
৭) RDBMS/ রিলেশনাল ডেটাবেজ (মা-১৬, রা-১৭,১৯)
যে ডেটাবেজে টেবিলসমূহের মধ্যে পরস্পর সম্পর্ক থাকে তাকে RDBMS বলে।
৮) DBMS(কু-১৯)
যে সফটওয়্যারের সাহায্যে ডেটাবেজ পরিচালনা করা হয় তাকে Database Management System বলে।
৯) ফিল্ড/ Attribute
একই জাতীয় ডেটাকে একই ক্যাটাগরিতে নামকরণ করাকে ফিল্ড বলে।
এনটিটির বৈশিষ্ট্য প্রকাশে যে সকল ডেটা ব্যবহার করা হয় তাকে এট্রিবিউট।
১০) টেবিল/Data Table/File
একই জাতীয় একাধিক রেকর্ডের সমষ্টিকে টেবিল বলে।
একই জাতীয় এনটিটির সমষ্টিকে এনটিটি সেট বলে।
১১) সর্টিংডেটাকে ক্রমানুসারে সাজিয়ে রাখাকে sorting বলে।
১২) ইনডেক্সিং(ঢা-১৭)মূল টেবিল অপরিবর্তীত রেখে ডেটাকে ক্রমানুসারে সাজিয়ে রাখাকে indexing বলে।
১৩) প্রাইমারি কী/ Primary Key যে ফিল্ডের সাহায্যে প্রত্যেকটি রেকর্ডকে ইউনিকভাবে শনাক্ত করা যায় তাকে প্রাইমারি কী বলে।
১৪) ফরেন কী /Foreign Key
এক টেবিলের প্রাইমারী কী অন্য টেবিলে ফরেন কী হিসেবে গণ্য হয়।
১৫) কম্পোজিট প্রাইমারি কী(ঢা-১৯)একাধিক ফিল্ডের সমন্বয়ে যদি প্রাইমারী কী এর কাজ করে তাকে কম্পোজিট প্রাইমারি কী বলে।
১৬) রিলেশনশিপ
এক টেবিলের রেকর্ডের সাথে অন্য টেবিলের রেকর্ডের সম্পর্ককে রিলেশনশিপ বলে।
১৭) Data / ডেটা; তথ্যের ক্ষুদ্রতম অংশকে ডেটা বলে।
১৮) ইনফরমেশন; ডেটাকে প্রক্রিয়া করলে ইনফরমেশন তৈরি হয়।
১৯) DDL; ডেটাবেজে কোনো কিছু তৈরি সংক্রান্ত কাজকে DDL বলে।
২০) DML; ডেটাবেজে কোনো কিছু পরিবর্তন সংক্রান্ত কাজকে DML বলে।
২১) রিপোর্ট; ডেটাবেজের ডেটা প্রদর্শন বা প্রিন্ট দেয়ার ভিউকে রিপোর্ট বলে।
২২) ফরম; ডেটাবেজের ডেটা এন্ট্রি বা ইনপুট দেয়ার ভিউকে ফরম বলে।
২৩) ডেটা টাইপ; (য-১৯) ডেটার ধরনকে ডেটা টাইপ বলে।
২৪) ডেটাসিকিউরিটি
অনুমতিবিহীন লোকের থেকে ডেটা সুরক্ষিত রাখাই হচ্ছে ডেটা সিকিউরিটি।
২৫) ডেটাওয়্যারহাউজ
যেখানে পুরাতন ডেটা জমা রাখা হয় তাকে ডেটাওয়্যারহাউজ বলে।
২৬) জাংশন টেবিল (সি-১৯)
Many to Many রিলেশনের ক্ষেত্রে ৩য় টেবিলকেই জাংশন টেবিল বলে।
২৭) ডেটা এডমিনিস্ট্রাটর; ডেটাবেজ নিয়ন্ত্রণকারীকে ডেটা এডমিনিস্ট্রাটর বলে।
২৮) ডেটা ইন্টারোগেশন
ডেটাবেজে পরিবর্তন বা আপডেট করাকে ডেটা ইন্টারোগেশন বলে।
২৯) ফ্রন্টএন্ড; ডেটাবেজের সাধারণ ব্যবহারকারীর অংশকে ফ্রন্টএন্ড বলে।
৩০) ব্যাক এন্ড; ডেটাবেজের এডমিনিস্ট্রাটরের অংশকে ব্যাকএন্ড বলে।
৩১) ক্রিপ্টোগ্রাফি; লেখাকে এনক্রিপ্ট-ডিক্রিপ্ট করাই হচ্ছে ক্রিপ্টোগ্রাফি বলে।
৩২) সাইফার টেক্সট; (চ-১৯) এনক্রিপশন করা লেখাকে সাইফার টেক্সট বলে।
৩৩) সিজার কোড; জুলিয়াস সিজারের পদ্ধতিতে এনক্রিপশন হলো সিজার কোড।
৩৪) E-R ডায়াগ্রাম; ডায়াগ্রামের সাহায্যে এনটিটি রিলেশনশিপ মডেল তৈরি হয়।
৩৫) কর্পোরেট ডেটাবেজ (উ-১৮, ব-১৯)কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান বা শাখাপ্রশাখা বিশিষ্ট বহুমুখী প্রতিষ্ঠানের ডেটাবেজকে কর্পোরেট ডেটাবেজ বলে।
৩৬) ক্লায়েন্ট সার্ভার ডেটাবেজ (ব-১৭)
যে ডেটাবেজ কেন্দ্রীয়ভাবে নিয়ন্ত্রিত হয় তাকে ক্লায়েন্ট সার্ভার ডেটাবেজ বলে।

অধ্যায়-৬; বিবরণ অংশ
bitbytecharacterdatafieldrecord
tabledatabaseDBMSRDBMS
Data-উপাত্ত Base-ভিত্তি/সমাবেশ/সমাহার।
DBMS এর ৪টি অত্যাবশ্যক উপাদান –ডেটা, ফিল্ড, রেকর্ড, টেবিল।
DBMS উন্নয়ন করেন চার্লস ব্যাচম্যান, ১৯৬০ এর দশকে।
জনপ্রিয় ও অধিক ব্যবহৃত ডেটাবেজ প্রোগ্রাম হলো Microsoft Office Access বা MsAccess, Oracle, My SQL, Microsoft SQL Server, SQLite, Sybase, dBase, FoxPro, DB2
Postgrace SQL ও SQLite ফ্রি – ওপেনসোর্সসফটওয়্যার।
Database এর অবজেক্ট ৭টি;
টেবিল, কুয়েরি, ফর্ম, রিপোর্ট, পেইজ, ম্যাক্রোস, মডিউলস।
ফিল্ড হলো ডেটাবেজের ক্ষুদ্রতম ইউনিট।
ডেটাবেজের ভিত্তি বলা হয়- ফিল্ডকে।
নাম ভিন্ন কিন্তু একই বিষয়; (এগুলো ডেটাবেজের উপাদান)
# ফিল্ড/ কলাম/ এট্রিবিউট বা Field/ Column/ Attribute
# রেকর্ড/ রো/ এনটিটি/ টাপল বা Record/ Row/ Entity
# টেবিল/ এনটিটি সেট/ ফাইল বা File/ Table/ Entity set
ডেটাবেজ ৩প্রকার; ক্লায়েন্ট-সার্ভার, ডিস্ট্রিবিউটেড, ওয়েবএনাবল
যে ফিল্ডের উপর ভিত্তি করে ফাইলের রেকর্ড শনাক্ত ও রিলেশন কাজ সম্পন্ন হয় তাকে কী-ফিল্ড বলে।
ডেটাবেজ কী ৩প্রকার। প্রাইমারি, কম্পজিট প্রাইমারি, ফরেন কী।
প্রাইমারি কী/ Primary Key; নম্বর, ইউনিক ও রিলেশনের শর্তে
ডেটাবেজের কোনো ফিল্ডের মান যদি না থাকে তাকে নাল ভ্যালু বলে।
ডেটার ধরনকে ডেটা টাইপ বলে।
Data type Data type(১০ প্রকার)
Text/ Character ইহা General ডেটা নামে পরিচিত। শুধু বর্ণ বা বর্ণ, সংখ্যা, চিহ্ন । (1 byte) (২৫৫ বর্ণ)
Number/ Numeric ইহা৫ ধরনের; বাইট-১বাইট, ইন্টেজার-২বাইট, লং ইন্টেজার ও সিঙ্গেল -৪বাইট, ডাবল- ৮বাইট মেমোরি
Logical/ বুলিয়ান (1byte) যে ডেটার শুধু ২ অবস্থা, ইহা সিলেক্ট করা হয়, লেখা যায় না। Yes-no, on-off, pass-fail
Date-time
(8 byte) তারিখ-সময় বুঝানোর জন্য (জন্মতারিখ, সময়, তারিখ) ইহা৩ প্রকার; short date,medium, long
Memo
(16 byte) বর্ণনামূলক লেখা বা বেশি লেখা যাতে ২৫৫টির বেশি বর্ণ লাগে, Address, comment, ৬৫৫৩৫বর্ণ
Auto Number যে নম্বর টাইপ করা হয় না বরং স্বয়ংক্রিয়ভাবে এন্ট্রি হয়, ID, serial number, ইহা ১ দিয়ে শুরু হয়
Currency
(8 byte) ইহা সংখ্যা দিয়ে লেখা হলেও মুদ্রার পরিমাণ বুঝায়
Exam fee, salary মুদ্রা চিহ্ন থাকে 50$
OLE Object Object Linking & Embedding
ছবি, ম্যাপ ডেটাবেজে যুক্ত করতে
Hyperlink ওয়েব অ্যাড্রেস বা URL/ লিংক যুক্ত করার জন্য
Attachment Lookup Wizard ফাইল যুক্ত করা
ডেটাবেজ এর কার্যক্রম ২ভাগে বিভক্ত;
১) Front end- ইউজারের কাজ। =DML ডেটাবেজের তথ্য পরিচালনা করে।
২) Back end- এডমিনের কাজ। =DDL ডেটাবেজ গঠন বা তৈরি সম্পর্কে।
এসকিউএল ডেটাবেজ এর প্রধান প্রকার ২টি;
▪DDL (Data Definition Language)
=Create, Alter, Drop
▪DML (Data Manipulation Language)
=Delete, Insert, Update —–
▪Relational Data Base Management System
RDBMS এর ধারণা দেন এডগার ফ্রাঙ্ক কড ১৯৭০ সালে। (IBM কর্মকর্তা)
এডগার ফ্রাঙ্ক কড (১৯২৩-২০০৩) ছিলেন ইংরেজ কম্পিউটার বিজ্ঞানী।
অনুক্রমfieldrecordtabledatabase
৩টি উল্লেখযোগ্য কুয়েরি ভাষা;
▪QUEL (Query Language),
▪QBE (Query By Example),
▪SQL (Structured Query Language)
SQL ৪প্রকার; ইউনিয়ন, পাস-থ্রো, ডেটা-ডেফিনেশন ও সাব কুয়েরি।
QUEL হলো কতগুলো স্টেটমেন্টের সমষ্টি।
QBE এ কাজের ধরণ ও উদাহরণ দিয়ে কুয়েরি করা হয়।
কুয়েরি ৪ ধরনের;
▪সিলেক্ট-select (ফিল্ডের ভিত্তিতে – ইহা সর্বাধিক জনপ্রিয়),
Select Query শর্ত সাপেক্ষে রেকর্ড অনুসন্ধানের জন্য
▪প্যারামিটার-parameter (ডায়লগ বক্সের তথ্যের ভিত্তিতে),
▪ক্রশট্যাব-crosstab (শর্তের ভিত্তিতে-ডেটা সামারি আকারে দেখায়),
▪অ্যাকশন- action (পরিবর্তনের জন্য)
অ্যাকশন কুয়েরি ৪প্রকার; ডিলেট, আপডেট, এপেন্ড, মেক টেবিল।
sorting অর্থ বাছাই বা সাজানো।
এক জাতীয় ডেটাকে মানের উর্ধ্বক্রম/ অধঃক্রম অনুসারে সাজানোকে সর্টিং বলে।
সর্টিং ২ ধরনেরঃ উর্ধবক্রম (Ascending) ও অধঃক্রম (Descending)
Ascendingহচ্ছে 0-9 a-z ধারাবাহিকতায় সাজানো।
Descendingহচ্ছে 9-0 z-aধারাবাহিকতায় সাজানো।
indexingঅর্থ হলো সূচী প্রণয়ন।
সর্টিং ইনডেক্সিং কুয়েরি
ক্রমানুসারে সাজানো বিষয় ভিত্তিক সাজানো শর্ত সাপেক্ষে খোঁজ করা
মূল টেবিল পরিবর্তন হয় মূল টেবিল অপরিবর্তিত মূল টেবিল অপরিবর্তিত
নতুন টেবিল তৈরি হয়না নতুন টেবিল তৈরি হয় নতুন টেবিল তৈরি হয়
সয়ংক্রিয় ভাবে আপডেট হয় না সয়ংক্রিয় ভাবে আপডেট হয় সয়ংক্রিয় ভাবে আপডেট হয় না
রিলেশনশিপ ৪ প্রকার।
Edger Frank Codd রিলেশনাল ডেটাবেজের জনক যিনি ১২টি বৈশিষ্ট্যের কথা বলেছেন।
কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানের ডেটাবেজই হচ্ছে কর্পোরেট ডেটাবেজ।
কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানে ERP (Enterprise Resource Planner) সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়। এতে কিছু মডিউল থাকে;
Accounts; হিসাব নিকাশ
Inventory; মজুদ পণ্য
Payroll; বেতনভাতা
Customer Relationship Management
এনক্রিপশন ২ প্রকার;
১) সিমেট্রিক- Symmetric (প্রেরক ও প্রাপকের কাছে একই কী)
২) অ্যাসিমেট্রিক- Asymmetric (ভিন্ন প্রাপকের জন্য পাবলিক ও প্রাইভেট কী)
উপাদান; প্লেইন টেক্সট, সাইফার টেক্সট, এনক্রিপশন-ডিক্রিপশন অ্যালগরিদম, কী
ডেটাকে এনক্রিপট-ডিক্রিপ্ট করাকে বলে- ক্রিপ্টোগ্রাফি
১) Caesar Code (সিজার কোড)= পরবর্তী ৩য় অক্ষর দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়,
২) DES (Data Encryption Standard)
৩) IDEA (International Data Encryption Algorithm)

অধ্যায়-৬; নৈর্বক্তিক অংশ
১. Database অর্থ- ডেটার সমাহার, উপাত্ত সমাবেশ
২. ডেটাবেজের ভিত্তি=ফিল্ড খ.অনুসন্ধান=কুয়েরি
৩. Data সাময়িকভাবে RAM বা অস্থায়ী মেমরিতে জমা থাকে
৪. ডাটাবেজের অত্যাবশ্যকীয় উপাদান ৪টি ডেটা, ফিল্ড, রেকর্ড, টেবিল
৫. তথ্যের ক্ষুদ্রতম অংশকে ডেটা বলে
প্রাথমিকভাবে সংগৃহীত হয়/ ইনপুট হিসেবে থাকে ডেটা
৬. পরস্পর সম্পর্কযুক্ত একাধিক ফিল্ড মিলে তৈরি হয় রেকর্ড
৭. টেবিল তৈরির পর তাতে এন্ট্রি করা হয় ডেটা
৮. টেবিলে নতুন ডেটা যোগ করাকে বলা হয় ডেটাএন্টি
৯. একই জাতীয় ডেটা থাকে ফিল্ডে
১০. ডেটাবেজ টেবিলের অংশ ২টি হচ্ছে -i.Header ii.Footer
১১. ডেটাবেজে প্রকার ২টি হচ্ছে – i.Relational ii. NoSQL
১২. ডেটাবেজে ট্যাব বা অবজেক্ট হচ্ছে Table, Query, Form, Report, Page, Macros, Modules
১৩. DBMS= Database Management System
১৪. DBMS = বিশেষ অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রাম
১৫. DBMS Database সফটওয়্যার
i. Ms Access ii. My SQL iii. Oracle
i.Postgrace SQL ii. SQLite iii. Ms SQL Server
১৬. বড় প্রতিষ্ঠানের জন্য ব্যবহৃত ডেটাবেজ সফটওয়্যার Oracle
১৭. ফ্রি ও ওপেন সোর্স সফটওয়্যার হচ্ছে
i. Postgrace SQL ii. SQLite
১৮. কেন্দ্রীয় ভাবে নিয়ন্ত্রিত ডেটাবেজকে বলে সেন্ট্রাল ডেটাবেজ
১৯. DBMS এর জনক = চার্লস ব্যাচম্যান
২০. RDBMS এর জনক = এডগার ফ্রাংক কড
২১. ডেটা হায়ারার্কির সবচেয়ে ক্ষুদ্রতম একক bit =binary digit
২২. ফিল্ডের ডেটা টাইপ ১০ প্রকার
২৩. Roll = Numaric
২৪. Name =Text
২৫. স্বয়ংক্রিয়ভাবে এন্ট্রি হয়ে যায় = Auto Number
২৬. ওয়েব পেইজের সাথে লিংক করা = Hyperlink
২৭. বেতন = Currency
২৮. সর্বোচ্চ ২৫৫ টি Character থাকতে পারে টেক্সট ডেটা টাইপে
২৯. সর্বোচ্চ ৬৫৫৩৬টি Character থাকতে পারেMemoডেটা টাইপে
৩০. ১ বাইট মেমোরি প্রয়োজন= Byte, Text, Logical
৩১. ২ বাইট মেমোরি প্রয়োজন= Integer
৩২. ৪ বাইট মেমোরি প্রয়োজন= long integer, Single
৩৩. ৮ বাইট মেমোরি প্রয়োজন= Date-Time, Double, Currency
৩৪. ডেটাবেজের বড় ডেটা টাইপ = Memo
৩৫. ইমেজ/ ছবি/ ফটো = OLE
৩৬. OLE = Object Linking & Embedding
৩৭. RDBMS
=Relational Database Management System
৩৮. DBMS ও RDBMS ১৯৬০, ১৯৭০
৩৯. যে ফিল্ডে কোনো তথ্য থাকে না =নাল ভ্যালু Null Value
৪০. কী ফিল্ড সাধারণত ৩ ভাগে বিভক্ত
i.ফরেন কী ii.কম্পোজিট প্রাইমারি কী iii.প্রাইমারি কী
৪১. প্রাইমারি কী হতে পারে
i.রোল নং iii. মোবাইল নম্বর
৪২. ডেটাবেজ থেকে রেকর্ড বাদ দেয়ার কমান্ড-delete record
৪৩. রিলেশনাশিপ ৩ প্রকার
৪৪. দুটি টেবিলের একটি করে রেকর্ডের সম্পর্ক = One 2 One
৪৫. ১ টেবিলের ১ রেকর্ডের অন্য টেবিলের একাধিক রেকর্ডের One 2 Many
৪৬. এক টেবিলের একাধিক রেকর্ডের অন্য টেবিলের একাধিক রেকর্ডের সম্পর্ক থাকলে = Many 2 Many
৪৭. ৩য় টেবিল বা Junction টেবিল = Many 2 Many
৪৮. দুই টেবিলের মধ্যে রিলেশনের শর্ত = কমন প্রাইমারি কী
৪৯. SQL =Structured Query Language
৫০. Query ভাষাগুলো হচ্ছে i.SQL ii. QBE iii.QUEL
৫১. ডিক্লেরেটিভ প্রোগ্রামিং ভাষা = SQL
৫২. SQL Query প্রকাশক মূল শব্দ
i.SELECT ii. WHERE iii.FROM
৫৩. DDL = Data Definition Language
৫৪. DML = Data Manipulation language
৫৫. DML = INSERT, SELECT, UPDATE
৫৬. DDL = CREATE
৫৭. DDL=এডমিন=ব্যাকএন্ড=CREATE
DML=ইউজার=ফ্রন্টএন্ড=UPDATE
৫৮. শর্ত সাপেক্ষে নির্দিষ্ট ডেটা অনুসন্ধান করা = কুয়েরি
৫৯. Query ৪ ভাগে বিভক্ত
ক. Select খ.Parameter গ. Action ঘ. Crosstab
৬০. Action Query ৪ ভাগে বিভক্ত
ক.Delete খ. Append গ. MakeTable ঘ. Append
৬১. সর্টিং অর্থ = বাছাই
৬২. সর্টিং ২ প্রকার;
৬৩. ডেটা সিকিউরিটির জন্য করা হয়=ডেটা এনক্রিপশন
৬৪. নিরাপত্তার জন্য ডেটাকে অন্য ফরমেটে পরিবর্তন করা= এনক্রিপশন
৬৫. ডেটাকে এনক্রিপ্ট ও ডিক্রিপ্ট করাকে এক কথায় বলে ক্রিপ্টো গ্রাফি
৬৬. সিজার কোডে সাধারণত প্রতিস্থাপন করা হয় পরবর্তী ৩য় বর্ণ দিয়ে
৬৭. ডেটার গোপনীয়তা রক্ষায় গৃহীত ব্যবস্থা = এনক্রিপশন
৬৮. সাধারণ লেখা কোডিং করার পর নাম হয় = সাইফারটেক্সট
৬৯. ডেটা Encrypt করা প্রয়োজন ডেটা সিকিউরিটি জন্যে
৭০. ডেটা এনক্রিপশন সংশ্লিষ্ট বিষয় হচ্ছে
i. প্লেইন টেক্সট ii. সাইফার টেক্সট iii.কী
৭১. ডেটা এনক্রিপশনের প্রকার ২টি হচ্ছে
i. সিমেট্রিক – একই কী ii. অ্যাসিমেট্রিক-পাবলিক ও প্রাইভেট কী

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
প্রকাশকঃ আরিফ জামান, সম্পাদকঃ সাইফ হাসান, বার্তা সম্পদকঃ মাহবুবা রেহমান ©নিউজ অনলাইন বিডি, সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web