রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৫০ পূর্বাহ্ন

নিউজ অনলাইন বিডি:
নিউজ অনলাইন বিডি পোর্টালে স্বাগতম। আপনার আশেপাশে ঘটে যাওয়া ঘটনার ছবি ও খবর আমাদেরকে মেইল করুন। দেশ ও জাতির কল্যাণে আমাদের সাথেই থাকুন।
ভার্সিটি ভর্তিতে আইসিটি; অধ্যায়-৩ (লজিক গেইট)

ভার্সিটি ভর্তিতে আইসিটি; অধ্যায়-৩ (লজিক গেইট)

অধ্যায়-৩-২; মৌলিক অংশ
১) ডিজিটাল ডিভাইস
=ডিজিট দ্বারা পরিচালিত ডিভাইসকে ডিজিটাল ডিভাইস বলে।
২) বুলিয়ান অ্যালজেবরা (য-১৭)
=জর্জ বুল প্রবর্তিত ০ ও ১ নির্ভর অ্যালজেবরাকে বুলিয়ান অ্যালজেবরা বলে।
৩) বুলিয়ান স্বতঃসিদ্ধ (ঢা-১৭)বুলিয়ানঅ্যালজেবরার সকল কাজ যোগ ও গুণের মাধ্যমে হয়,এদের বিশেষ নিয়মই বুলিয়ান স্বতঃসিদ্ধ।
৪) বুলিয়ান চলক/ Variable
=ফাংশনে যার মান পরিবর্তন হয় তাকে চলক বলে।
৫) বুলিয়ান ধ্রুবক/ Constant (স-১৮)
=ফাংশনে যার মান পরিবর্তন হয় না তাকে ধুবক বলে।
৬) সত্যক সারণী / Truth Table (দি-১৯)
=ফাংশনের মান যে সারণীতে প্রকাশ করা হয় তাকে সত্যক সারণী বলে।
৭) রেজিস্টার/Register (কু-১৬, ১৭, রা-১৯)
=এক ধরনের মেমোরি উপাদান যা কয়েক বিট তথ্য সংরক্ষণ করে।
৮) ফ্লিপফ্লপ
=যে মেমোরি উপাদান এক বিট তথ্য সংরক্ষণ করে তাকে ফ্লিপফ্লপ বলে।
৯) কাউন্টার/ Counter(ব-১৭, উ,স-১৮)
=যে সার্কিট ইনপুট পালসের সংখ্যা গণনা করতে পারে তাকে কাউন্টার বলে।
১০) মডিউলাস/ কাউন্টার মোড (সি-১৯)
= একটি কাউন্টার সর্বোচ্চ যত সংখ্যা গুনতে পারে তাকে মডিউলাস বলে।
১১) এনকোডার/ Encoder (য-১৬, ঢা-১৯)যে সার্কিট মানুষের ভাষাকে কম্পিউটারের ভাষায় কোড করে তাকে এনকোডার বলে।
১২) ডিকোডার/ Decoder (সি-১৭)যে সার্কিট কম্পিউটারের ভাষাকে মানুষের ভাষায় রুপান্তর করে তাকে ডিকোডার বলে।
১৩) অ্যাডার/ Adder (কু-১৯)
=যে সার্কিটের সাহায্যে ২বা ৩ বিট যোগ করা হয় তাকে এডার বলে।
১৪) গেইট/লজিক গেইট/LogicGate(সি,ব-১৬)
=যে সকল সার্কিট এক বা একাধিক ইনপুট নেয় কিন্তু একটিই আউটপুট দেয় তাকে লজিক গেইট বলে।
=যে সকল সার্কিট ডিজিটাল সিগন্যাল বাস্তবায়ন করে তাকে গেইট বলে।
=যে সকল সার্কিট যুক্তিভিত্তিক সিগন্যাল নিয়ন্ত্রণ করে তাকে গেইট বলে।
১৫) মৌলিক গেইট/ মৌলিক লজিক গেইট
=মৌলিক অপারেশন বাস্তবায়নের বর্তনীকে মৌলিক লজিক গেইট বলে।
১৬) যৌগিক গেইট/ যৌগিক লজিক গেইট/ Composite Gate
=একাধিক মৌলিক গেইট মিলে যৌগিক লজিক গেইট হয়।
১৭) সর্বজনীন গেইট/ Universal Gate(চ,য-১৯)
যে গেইট দ্বারা অন্য সকল গেইট তৈরি করা যায় তাকে সর্বজনীন গেইট বলে।
১৮) বিশেষ গেইট/ Exclusive Gate = যে গেইট ৫টি মৌলিক =গেইটের সমন্বিত আউটপুট প্রদান করে তাকে বিশেষ গেইট বলে।
১৯) OR Gate =দুই বা দুয়ের অধিক ইনপুট এবং একটি আউটপুট থাকে যার কোন একটি ইনপুট ১ হলেই আউটপুট ১ হবে, সব ইনপুট ০ হলে আউটপুট ০ হবে।
২০) AND Gate
= দুই বা দুয়ের অধিক ইনপুট এবং একটি আউটপুট থাকে যার সকল ইনপুট ১হলেই আউটপুট ১ হবে। কোন একটি ইনপুট ০ হলে আউটপুট ০ হবে।
২১) NOT Gate =একটি ইনপুট এবং একটি আউটপুট থাকে যার ইনপুট ১ হলে আউটপুট ০ হবে এবং ইনপুট ০ হলে আউটপুট ১ হবে।
২২) NOR Gate = OR গেইটের আউটপুট যদি NOT গেইট দিয়ে প্রবাহিত হয় তাকে NOR গেইট বলে। এটি OR গেইটের বিপরীত।
২৩) NAND Gate
=AND গেইটের আউটপুট যদি NOT গেইট দিয়ে প্রবাহিত হয় তাকে NAND গেইট বলে। এটি AND গেইটের বিপরীত।
২৪) X-OR Gate = এটি একটি সমন্বিত গেইট যার বিজোড় সংখ্যক ইনপুট ১হলে আউটপুট ১হবে, অন্যথায় ০ হবে।
২৫) X-NOR Gate
=XOR গেইট এর আউটপুট নট গেইট দিয়ে প্রবাহিত হলে X-NORগেইট হয়।

অধ্যায়-৩-২; বিবরণ অংশ
#আনকোডেড ডেটাকে কোড করাই হলো এনকোডার। কী বোর্ডের সাথে থাকে।
#মানুষের ভাষাকে কম্পিউটারের ভাষায় রূপান্তর করাকে এনকোডার বলে।
#এনকোডার এমন একটি সমবায় ডিজিটাল সার্কিট যার দ্বারা সর্বাধিক
2n টি ইনপুট থেকে n টি আউটপুট পাওয়া যায়।
#বিভিন্ন ধরনেরএনকোডার 4to2বাইনারি, 8to3অক্টাল, 16to4 ডেসিমেল
#ইনপুট সব ০ হয় না, একটি মাত্র ১ থাকে, আউটপুটলাইনে ০ বা ১ থাকে।
#কোডেড ডেটাকে আনকোড করাই হলো ডিকোডার। মেমোরির সাথে থাকে।
#কম্পিউটারের ভাষাকে মানুষের ভাষায় রূপান্তর করাকে ডিকোডার বলে।
#ডিকোডার এমন একটি সমবায় ডিজিটাল সার্কিট যার দ্বারা n টি ইনপুট থেকে সর্বাধিক 2nটি আউটপুট লাইনের একটিতে ১ বাকিগুলোতে ০ আউটপুট পাওয়া যায়।
#ডিকোডার বিভিন্ন ধরণের হয়, যেমনঃ 2to4, 3to8, 4to16 ডিকোডার।
#আউটপুট সব ০ হয় না, একটি মাত্র ১ থাকে, ইনপুটলাইনে ০ বা ১ থাকে।
*এনকোডার থাকে ইনপুট ডিভাইসের সাথে আর ডিকোডার থাকে আউটপুটে;
এনকোডার ডিকোডার
ইনপুট 2n= আউটপুট n ইনপুট n =আউটপুট2n
৪=২ ২=৪
৮=৩ ৩=৮
১৬=৪ ৪=১৬
৩২=৫ ৫=৩২
টেক্সট, ডেসি, অক্টাল, হেক্সা= বাইনারি বাইনারি=টেক্সট, ডেসি, অক্টাল, হেক্সা

#যে সমবায় সার্কিট/বর্তনী দ্বারা যোগ করা যায় তাই এডার (adder)২প্রকার।
#কম্পিউটারের যোগ, বিয়োগ (পূরক), গুণ (পুনঃযোগ), ভাগ সবই যোগ প্রক্রিয়ায় হয়।
#ফুল এডারঃ ৩বিট যোগ করার বর্তনীকে ফুলএডার বলা হয়। ৩টি ইনপুট থাকে।
#হাফ এডারঃ ২বিট যোগ করার বর্তনীকে হাফএডার বলা হয়। ২টি ইনপুট থাকে।
#২টি হাফ এডার দিয়ে ১টি ফুল এডার তৈরি করা যায়।
ইংরেজ গণিতবিদ জর্জ বুলি কর্তৃক সৃষ্টসত্য-মিথ্যা বা ০-১ নির্ভর বীজগণিত হচ্ছে বুলিয়ান অ্যালজেবরা। ডিজিট দ্বারা পরিচালিত ডিভাইস হচ্ছে ডিজিটাল ডিভাইস।
ডিজিটাল ডিভাইস ৬টির ইনপুট আউটপুট থেকেও সংজ্ঞা হয়
লজিক গেইট; ইনপুট= এক/ একাধিক; আউটপুট= ১টি
এনকোডার; ইনপুট= 2n; আউটপুট= n সংখ্যক
ডিকোডার; ইনপুট= n; আউটপুট= 2nসংখ্যক
এডার; ইনপুট= ২ বা ৩টি; আউটপুট= ২টি
রেজিস্টার; ইনপুট= n; আউটপুট= nটি
কাউন্টার; 2n বা মডিউলাস সংখ্যক গুণতে পারে

মোট লজিক গেইট ৭টি, মৈলিক ৩টি, যৌগিক ৪টি, সর্বজনীন ২টি, বিশেষ ২টি।
বুলিয়ান উপপাদ্য
Double / দ্বৈত উপপাদ্য A ̅ ̅=A
Idempotent /অপরিবর্তনীয় উপপাদ্যA+A=A A.A=A
Identity /পরিচিতি উপপাদ্য A+0=A A.1=A
Domination /কর্তৃত্ব উপপাদ্য A+1=1 A.0=0
ঙ. Distributive /বিভাজন উপপাদ্য X+YZ=(X+Y)(X+Z)
চ. Commutative /বিনিময় উপপাদ্য X+Y=Y+X XY=YX
ছ. Absorption /সহায়ক উপপাদ্য X+XY= X X(X+Y)=X

১। (একই চলকের সূত্র) A+A=AA.A=A
একই চলক যত যোগ বা গুণ করে একটিই হবে
২। (1 এর সূত্র) A+1=1 A.1=A
1 এর সাথে যাহাই যোগ হবে তার ফল হবে 1
৩। (0 এর সূত্র) A+0=A A.0=0
0 এর সাথে যাহাই গুণ হবে তার ফল হবে 0
৪। (বিপরীত চলকের সূত্র)A+A ̅=1 A.A ̅= 0কোনো অক্ষর তার নটের সাথে যোগে 1, গুণে 0 হয়
৫।(ডি-মরগানের সূত্র) বার ভাংলে সাইন পরিবর্তন হয়
(A+B) ̅=A ̅.B ̅ (A.B) ̅=A ̅+B ̅
৬। ডবল বার ইজ নো বারA ̅ ̅= A
৭। বিভাজনের সূত্র A+BC= (A+B) (A+C)
৮। AB= A ̅B+ AB ̅(AB) ̅ = A ̅B ̅ + AB

#ফরাসী গণিতজ্ঞ ডি-মরগ্যানের ২টি বিশেষ উপপাদ্য আবিষ্কার করেন এবং তার নামানুসারে ডি-মরগ্যানের উপপাদ্যবলা হয়।
#(দুই চলক) ১ম উপপাদ্য-= ২য় উপপাদ্য- = +
#(তিন চলক) ১ম ২য় = + +
চলকের মান টেবিল বা সারণীতে প্রকাশ করা হলে তাকে Truth Tableবলে।
#চলকের (ইনপুট) বিভিন্ন মানের জন্য ফাংশনের (আউটপুট)পরিবর্তিত মানকে যে সারণীতে প্রকাশ করা হয় তাকে Truth Tableবলে।
#চলকের মানকে ইনপুট আর আর ফাংশনের মানকে আউটপুট বলে।
NOR ও NAND গেইটকে সর্বজনীন গেইট বলা হয় কারণ এই ২ গেইট দ্বারা সকল গেইট বাস্তবায়ন করা যায়
অধ্যায়-৩-২; নৈর্বক্তিক অংশ

১. বুলিয়ান অ্যালবেজরা ও ডিজিটাল ডিভাইস সম্পর্কে
জর্জ বুল ১৮৪৮/ ১৮৫৪ সালে বুলিয়ান অ্যালজেবরা আবিষ্কার করেন
০,১ নির্ভর বা সত্য-মিথ্যা নির্ভর অ্যালজেবরাকে বুলিয়ান আলজেবরা বলে
ডিজিট দ্বারা পরিচালিত ডিভাইসকে ডিজিটাল ডিভাইস বলে
লজিক গেইট, এডার, এনকোডার, ডিকোডার হচ্ছে ডিজিটাল ডিভাইস
২. বুলিয়ান অ্যালবেজরার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য
বুলিয়ান অ্যালজেবরা ০, ১ হচ্ছে একটি অন্যটির পূরক বা complement
ফাংশনে যার মান পরিবর্তন হয় তাই চলক, আর মান পরিবর্তন না হলে ধ্রুবক
কম্পিউটারের সার্কিটে ০,১ দ্বারা ভোল্টেজ সাধারণত 0ও 5 বুঝায়
বুলিয়ান অ্যালজেবরার ফলাফল ০,১ ছাড়াও অন্য কিছু হতে পারে না
৩. বুলিয়ান অ্যালবেজরারমৌলিক লজিক অপারেশন হচ্ছে
i.AND Operation
ii. OR Operation
iii.NOT Operation
৪. বুলিয়ান অ্যালবেজরার
বুলিয়ান অ্যালজেবরার সকল কাজ যোগ, গুণ এর মাধ্যমে হয়ে থাকে
বুলিয়ান যোগের নিয়ম 0+0=0, 0+1=1, 1+0=1, 1+1=1
বুলিয়ান গুণের নিয়ম 0.0=0, 0.1=0, 1.0=0, 1.1=1
বুলিয়ান পূরকের নিয়ম 1 ̅=0 0 ̅=1
৫. ডিজিটাল ডিভাইসে প্রবাহিত ভোল্টেজের মান
i. 0 থেকে .8=0 ii. 2 থেকে 5=1 iii..8 থেকে 2=অসঙ্গায়িত
৬. কোন মান 0 নির্দেশ করে? (স-১৮)
0—3 0—- .8 .8 —– 2 2 —-5
৭. কোন মান 1 নির্দেশ করে? (স-১৮)
0—3 0—- .8 .8 —– 2 2 —-5
৮.
সিগন্যালটির সাংখ্যিক মান হবে- 10110010110010
৯. বুলিয়ান উপপাদ্য
Double / দ্বৈত উপপাদ্য A ̅ ̅=A
Idempotent /অপরিবর্তনীয় উপপাদ্য A+A=A A.A=A
Identity /পরিচিতি উপপাদ্য A+0=A A.1=A
Domination /কর্তৃত্ব উপপাদ্য A+1=1 A.0=0
১০. কোনটি সঠিক ও কোনটি ভুল?
A.1=A A+1=0 A ̅.A=0
A+A=A A ̅+A=1 A.A=0
A+BC=(A+B)(A+C A.1=A A ̅.A=0
১১. ডিমরগানের উপপাদ্য হচ্ছে
i. (A+B) ̅=A ̅.B ̅ ii. (A.B) ̅=A ̅+B ̅
১২. কোন চলক ফাংশনের মান সারনীতে প্রকাশ করলে তাকে বলে সত্যক সারণী
১৩. লজিক গেইট
যে সকল সার্কিট ডিজিটাল সিগন্যাল বাস্তবায়ন করে
যে সকল সার্কিট এক বা একাধিক ইনপুট নেয় আর একটি মাত্র আউটপুট দেয়
যে সকল সার্কিট যুক্তি ভিত্তিক সিগন্যাল প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করে
১৪. Gate / Logic Gate এর প্রকার
i.মৌলিক গেইট ৩টি ii. যৌগিক গেইট ৪টি iii. মোট গেইট ৭টি
১৫. লজিক গেইটের তথ্য
মৌলিক অপারেশন বাস্তবায়নের বর্তনীকে বলে মৌলিক গেইট
একাধিক মৌলিক গেইট মিলে তৈরি হয় যৌগিক গেইট
OR ও AND গেইটের সাথে NOT মিলে হয় সর্বজনীন গেইট
যে গেইট দ্বারা সকল গেইট বাস্তবায়ন করা যায় তাই হচ্ছে সর্বজনীন গেইট
১৬. OR, AND এবং NOT = মৌলিক লজিক গেট
১৭. OR, AND এবং NOT গেট এর কোন আচরণ
যোগ=OR গুণ=AND পূরক/ বিপরীত=NOT
১৮. NOT গেইট পূরকের কাজ করে যার
i.১টি ইনপুট ii.১টি আউটপুট iii.ইনপুট ও আউটপুট পরস্পর বিপরীত
১৯. যে গেইটে ২ বা ২এর অধিক ইনপুট থাকতে পারে, কিন্তু আউটপুট থাকবে ১টি
OR-AND, NOR-NAND, X-OR-X-NOR Gate
২০. OR গেট
সকল ইনপুট ১ হলে আউটপুট ১ হবে
যেকোনো একটি ইনপুট ১ হলে আউটপুট ১ হবে
সকল ইনপুট ০ হলে আউটপুট ০ হবে, ফলে 0+0+0=0 হবে
1+1=1, 0+0+1=1, 1+0+1+0=1
২১. AND গেট
সকল ইনপুট ১ হলে আউটপুট ১ হবে
যেকোনো ইনপুট ০ হলে আউটপুট ০ হবে, ফলে 0.0=0 হবে
1.1=1, 1.1.1.1=1, 0.1.1=0, 1.0.1.0=0
২২. কোনতথ্যটিসম্পূর্ণ সঠিক নয়?
1+A+AB+¯A =1 1+1+1+0+1=1
1.1.1.1 =1 1.0.1.0=1
২৩. NOT গেইটের আউটপুট ইনপুটের বিপরীত
২৪. ইনপুট ও আউটপুট লাইন সংখ্যা সমান NOT গেইটে
২৫. সার্বজনীন গেইট
যে গেইট দিয়ে অন্য সকল গেইট বাস্তবায়ন করা যায় তাকে বলে সর্বজনীন গেইট
NAND ও NOR হচ্ছে সর্বজনীন গেইট, এরা যৌগিক গেইট
NOT+AND=NAND ও NOT+OR=NOR গেইট
সর্বজনীন গেইট দ্বারা বিশেষ গেইট বাস্তবায়ন করা যায়
২৬. সার্বজনীন গেইট সম্পর্কে সঠিক
OR+NOT=NOR এবং NOR+NOT =OR
AND এর বিপরীত NAND ও ORএর বিপরীত NOR
AND এর আউটপুট ১হলে সেক্ষেত্রে NAND এর আউটপুটও ০ হবে
NAND এর বিপরীত AND ও NORএর বিপরীত OR
২৭. উভয় ইনপুট 1 আউটপুট 0 হয় = NAND, NOR
২৮. সকল ইনপুট 0 হলে আউটপুট 1হবে কোন গেইটে= NOR NAND
২৯. বিশেষ গেইট হচ্ছে = X-OR X-NOR
৩০. X-OR গেইটে থাকে i. AND ii. NOT iii. OR
৩১. এনকোডার সম্পর্কে
যে সার্কিট মানুষের ভাষাকে কম্পিউটারের ভাষায় রূপান্তর করে তাই এনকোডার
ইহা আনকোডেড ডেটাকে কোড করে, ইহা ইনপুট ডিভাইসের সাথে যুক্ত থাকে
ইহা একটি ডিজিটাল বর্তনী
ইংরেজি বর্ণকেASCII কোড করে কম্পিউটারের নিকট বুঝিয়ে দেয়
৩২. এনকোডারের ইনপুট-আউটপুট সম্পর্কে
ইনপুটের চেয়ে আউটপুট কম হয়
ইহার ইনপুট থাকে 2n সংখ্যক এবং আউটপুট থাকে n সংখ্যক
ইনপুট হচ্ছে দশমিক, অক্টাল, হেক্সাডেসিমেল সংখ্যা, আউটপুট হচ্ছে ইনারি সংখ্যা
এনকোডারের ইনপুট যথাক্রমে ১৬টি,৮টি,৪টি হলে আউটপুট হবে= ৪টি, ৩টি, ২টি
৩৩. ডিকোডার সম্পর্কে
যে সার্কিট কম্পিউটারের ভাষাকে মানুষের ভাষায় রূপান্তর করে তাই ডিকোডার
কোডেড ডেটাকে আনকোড করে, nসংখ্যকইনপুট থেকে2n টি আউটপুট দেয়
ইনপুট হচ্ছে বাইনারি ও আউটপুট হচ্ছে দশমিক, অক্টাল, হেক্সাডেসিমেল সংখ্যা
এনকোডারের ইনপুট যথাক্রমে ৪টি, ৩টি, ২টি হলে আউটপুট হবে= ১৬টি, ৮টি, ৪টি
৩৪. ডিকোডারের ইনপুটে থাকে = বাইনারি
৩৫. এনকোডারের আউটপুটে থাকে= বাইনারি
৩৬. Adder সম্পর্কে কোন তথ্যটি যথার্থ নয়?
যে সার্কিট একাধিক বিট যোগ করতে পারে তাকে এডার বলে
এডার ২প্রকার; হাফ এডার (২বিট যোগ করে) ও ফুল এডার (৩বিট যোগ করে)
হাফ এডারের ২ইনপুট ও ২আউটপুট কিন্তু ফুল এডারের ৩ইনপুট ও ২আউটপুট
২ টি হাফ এডার দিয়ে ১টি ফুল এডার বাস্তবায়ন করা যায়
৩৭. হাফ অ্যাডার গঠিত হয় = X-OR+ AND
৩৮. রেজিস্টার সম্পর্কে কোন তথ্যটি সঠিক নয়?
রেজিস্টার হচ্ছে একগুচ্ছ মেমোরি উপাদান যা কয়েক বিট তথ্য সংরক্ষণ করে
রেজিস্টার ২প্রকার; সাধারণ ও বিশেষ কাজের; সাধারণ ২প্রকারঃ শিফট-প্যারালাল
রেজিস্টারে n সংখ্যক ইনপুট থাকলে আউটপুট থাকে nটি
১বিট তথ্য সংরক্ষণ করে ফ্লিপফ্লপ; ৪/৮টি ফ্লিপফ্লপ দিয়ে তৈরি হয় রেজিস্টার
৩৯. তথ্য উপাত্ত সংরক্ষণের সংশ্লিষ্ট ফ্লিপফ্লপ ও রেজিস্টার
৪০. কাউন্টার সম্পর্কে কোন তথ্যটি সঠিক
যে সার্কিট প্রাপ্ত ইনপুট পালসের সংখ্যা গণনা করে তাকে কাউন্টার বলে
কাউন্টার প্রতিবার সর্বোচ্চ যত সংখ্যা গুণতে পারে তাকে বলে মডিউলাস
কাউন্টারের n সংখ্যক ফ্লিপফ্লপ থাকলে মডিউলাস থাকবে 2nসংখ্যক
#গঠন অনুসারে রেজিস্টার ২ প্রকারঃ প্যারালাল লোড ও শিফট রেজিস্টার।
#প্রধানত রেজিস্টার ২প্রকার হচ্ছেঃ সাধারণ ও বিশেষ।
#বিশেষ রেজিস্টার ৯প্রকার; আকিউমুলেটর, প্রোগ্রাম কাউন্টার, ইন্সট্রাকশন, ইনডেক্স, ইনপুট-আউটপুট, মেমোরি বাফার, মেমোরি এড্রেস, ফ্লাগ, স্টাকপয়েন্টার।
ব্যবহারঃ ইহা সিপিউ-র কাজে ব্যবহারযোগ্য। সাময়িক নির্দেশ জমা থাকে। প্রধান মেমরি নয়, ক্যাশ মেমরি হিসেবে কাজ করে। ক্যালকুলেটর ও ঘড়িতেও এর ব্যবহার আছে।
কাউন্টার; ২প্রকারঃ ১-সিনক্রোনাস কাউন্টার ২-এসিনক্রোনাস বা রিপল কাউন্টার।
#প্রতিটি ২প্রকারঃ আপ ও ডাউন এবং রিপল আপ ও রিপল ডাউন কাউন্টার।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
প্রকাশকঃ আরিফ জামান, সম্পাদকঃ সাইফ হাসান, বার্তা সম্পদকঃ মাহবুবা রেহমান ©নিউজ অনলাইন বিডি, সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web