মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ০৪:৫৯ অপরাহ্ন

নিউজ অনলাইন বিডি:
নিউজ অনলাইন বিডি পোর্টালে স্বাগতম। আপনার আশেপাশে ঘটে যাওয়া ঘটনার ছবি ও খবর আমাদেরকে মেইল করুন। দেশ ও জাতির কল্যাণে আমাদের সাথেই থাকুন।
ভার্সিটি ভর্তিতে আইসিটি; অধ্যায়-৩ (সংখ্যাপদ্ধতি)

ভার্সিটি ভর্তিতে আইসিটি; অধ্যায়-৩ (সংখ্যাপদ্ধতি)

অধ্যায়-৩; মৌলিক অংশ
১) Digit/ অঙ্ক; (মা-১৭)সংখ্যা প্রকাশের যে সকল চিহ্ন ব্যবহার করা হয় তাকে ডিজিট বা অঙ্ক বলে।
২) সংখ্যা পদ্ধতি/ Number System= (য-১৭)যে পদ্ধতিতে সংখ্যা প্রকাশ ও গণনা করা হয় তাকে সংখ্যা পদ্ধতি বলে।
৩) পজিশনাল সংখ্যা পদ্ধতি = যে সংখ্যা পদ্ধতিতে অঙ্কের নিজস্বমান+ স্থানীয়মান + ভিত্তি আছে তাকে পজিশনাল সংখ্যা পদ্ধতি বলে।
৪) ননপজিশনাল সংখ্যা পদ্ধতি= যে সংখ্যা পদ্ধতিতে অঙ্কের শুধু নিজস্বমান আছে কিন্তু স্থানীয়মান ও ভিত্তি নাই তাকে ননপজিশনাল সংখ্যা পদ্ধতি বলে।
৫) বাইনারি সংখ্যা পদ্ধতি (ঢা-১৯) = যে সংখ্যা পদ্ধতিতে ০,১ এ দুটি ডিজিট ব্যবহার করা তাকে বাইনারি বা দুই ভিত্তিক সংখ্যাপদ্ধতি বলে।
৬) অক্টাল সংখ্যা পদ্ধতি=যে সংখ্যা পদ্ধতিতে ০ থেকে৭ পর্যন্ত ৮টি ডিজিট ব্যবহার করা তাকে অক্টাল বা আট ভিত্তিক সংখ্যাপদ্ধতি বলে।
৭) দশমিক সংখ্যা পদ্ধতি/ Decimal=যে সংখ্যা পদ্ধতিতে ০ থেকে৯ পর্যন্ত ১০টি ডিজিট ব্যবহার করা তাকে দশমিক সংখ্যাপদ্ধতি বলে।
৮) হেক্সাডেসিমেল সংখ্যা পদ্ধতি=যে সংখ্যা পদ্ধতিতে ০ থেকে৯ এবং Aথেকে F পর্যন্ত ১৬টি ডিজিট ব্যবহার করা তাকে হেক্সাডেসিমেল বলে।
৯) ভিত্তি / Base(ঢা,চ-১৭)= কোনো সংখ্যা পদ্ধতির মৌলিক চিহ্নের সংখ্যাই ভিত্তি।
১০) স্থানীয়মান= সংখ্যার অবস্থানগত মানকে স্থানীয় মান বলে।
১১) কোড/ কম্পিউটার কোড; (দি-১৭, স-১৮, ব-১৯)ডেটাকে কম্পিউটারের নিকট বুঝাতে বা বাইনারি করতে যে সকল সংকেত ব্যবহার করা হয়।
১২)BCD(দি, ঢা-১৬, কু-১৭, য,সি-১৯)=Binary Coded Decimal হচ্ছে ডেসিম্যাল সংখ্যাকে ৪বিটে বাইনারি সংখ্যায় কোড করা।
১৩) ASCII(চ-১৬, রা-১৯)=American Standard Code for Information Interchange ইহা ৭বিটের কোড, প্যারিটি বিট সহ ৮বিটের সংখ্যা ও বর্ণের কোড
১৪)Unicode= (রা-১৭, কু,চ,দি-১৯)Universal Code হচ্ছে ১৬ বিটের কোড যার সাহায্যে বিশ্বের সকল ভাষা কোডভূক্ত করা হয়েছে।
১৫) EBCDIC=Extended Binary Coded Decimal Information Code ইহা ৮বিটের সংখ্যা ও বর্ণের সমন্বয়ে তৈরি।
১৬)Signed Number/ চিহ্ন বিট=কোন সংখ্যার বাইনারি মানকে ৮ বিটে প্রকাশ করলে সর্ব বামের বিটকে চিহ্ন যুক্ত সংখ্যা বলে।
১৭) ১’র পরিপূরক/ 1’s Complement/পূরক= কোন সংখ্যার বাইনারি মানকে ৮ বিটে প্রকাশ করে উল্টালে ১’র পরিপূরক হয়।
১৮) ২’র পরিপূরক/ 2’s Complement(সি-১৭)=কোন সংখ্যার বাইনারি মানকে ৮ বিটে প্রকাশ করে উল্টালে ১’র পরিপূরক হয়, ১’র পরিপূরকের সাথে ১ যোগ করলে ২’র পরিপূরক হয়।
১৯) Bit & Byte= বাইনারি প্রতিটি ডিজিটকে (Binary Digit=bit) বিট বলে। ৮ বিটে ১বাইট হয়।
২০) LSD/MSD= Least Significant Digit/ Most Significant Digit = সংখ্যার বামের ডিজিটকে MSD ও ডানের ডিজিটকে LSD বলে।
২১) র‍্যাডিক্স পয়েন্ট= পূর্ণাংশ ও ভগ্নাংশের বিভাজনকারী পয়েন্টকে র‍্যাডিক্স পয়েন্ট বলে।

অধ্যায়-৩; বিবরণ অংশ

সংখ্যা পদ্ধতি ভিত্তি মৌলিক চিহ্ন উদাহরণ
বাইনারি/Binary ২ 01 (1010)2
অক্টাল/Octal ৮ 01234567 (1357)8
দশমিক/Decimal ১০ 0123456789 (5678)10
হেক্সা/Hexadecimal ১৬ 0123456789ABCDEF (34AC)16
সংখ্যা পদ্ধতির তুলনামূলক ছকঃ
Hexa Octal Decimal Binary মান ৪বিট ৩বিট
0 0 0 0 0 0000 000
1 1 1 1 1 0001 001
2 2 2 10 2 0010 010
3 3 3 11 3 0011 011
4 4 4 100 4 0100 100
5 5 5 101 5 0101 101
6 6 6 110 6 0110 110
7 7 7 111 7 0111 111
8 10 8 1000 8 1000
9 11 9 1001 9 1001
A 12 10 1010 10(A) 1010
B 13 11 1011 11(B) 1011
C 14 12 1100 12(C) 1100
D 15 13 1101 13(D) 1101
E 16 14 1110 14(E) 1110
F 17 15 1111 15(F) 1111
#বাইনারি যোগ ১+১=১০ (এর ০ নামে এবং ক্যারি থাকে বা হাতে থাকে ১)
#কোন সংখ্যার ঋণাত্মক মান বের করার তিন পদ্ধতি; যেমন ১২ এর ক্ষেত্রে
১) প্রকৃত ধনাত্মক মান =০০০০১১০০ =+১২
২) প্রকৃত ঋণাত্মক মান =১০০০১১০০ = -১২
৩) ১’র পরিপূরক ঋণাত্মক=১১১১০০১১ = -১২
৪) ২’র পরিপূরক ঋণাত্মক=১১১১০১০০ = -১২
#কম্পিউটার বুঝতে পারে এমন চিহ্নকে কোড বলে।

অধ্যায়-৩; নৈর্বক্তিক অংশ

১. যেখানে সংখ্যার জন্ম হয়েছে সুমেরিয়ান-ব্যাবিলন-মিশরীয় সভ্যতা
২. ১০ ভিত্তিক সংখ্যা ছিলো- মিশর – চীন – ভারত
৩. ভিত্তি হিসেবে সুমেরিয়ান-ব্যাবিলন=৬০, মায়ান=২০
৪. সংখ্যা সম্পর্কে কোন তথ্যটি সঠিক নয়?
সময় ও কোন মাপার ৬০ ভিত্তিক সংখ্যা সুমেরিয়ান, ব্যবিলিয়ান
সর্বপ্রথম ভারতে শূণ্য ও মিশরে ভগ্নাংশ ব্যবহার চালু হয়
আধুনিক দশমিক সংখ্যা ভারত থেকে আরব ও ইউরোপে ছড়ায়
সংখ্যা গণনার জন্য ব্যবহৃত চিহ্নকে অঙ্ক বলে
৫. সংখ্যা প্রকাশ ও গণনা করার পদ্ধতিকে বলে = সংখ্যাপদ্ধতি
৬. সংখ্যা পদ্ধতিকে প্রথমত ২ ভাগে ভাগ করা হয়
৭. পজিশনাল সংখ্যা পদ্ধতি ৪ প্রকার / ভিত্তি হিসেবে সংখ্যা ৪ প্রকার
৮. পজিশনাল সংখ্যা পদ্ধতিতে সংখ্যার মান নির্ণয়ে দরকার
i.অঙ্কের নিজস্ব মান ii.স্থানীয় মান iii.বেজ বা ভিত্তি
৯. নন পজিশনাল সংখ্যা = রোমান, হায়ারোগ্লিফিক্স
১০. কমপিউটারের অভ্যন্তরীণ কাজ সম্পাদনের জন্য বাইনারি পদ্ধতি ব্যবহার হয়
১১. কমপিউটারে তথ্য প্রক্রিয়াকরণ কাজে ডেসিম্যাল বা দশমিক পদ্ধতি ব্যবহার হয় না
১২. কমপিউটারে তথ্য প্রক্রিয়াকরণ কাজে অক্টাল ও হেক্সাডেসিম্যাল পদ্ধতি ব্যবহার হয়
১৩. Bi শব্দের বাংলা অর্থ দুই, ভিত্তি ২, প্রতীক ০, ১
১৪. বাইনারী সংখ্যা
i. সাধারণ মানুষ ব্যবহার করে না
ii. কমপিউটারের নিজস্ব সংখ্যা
iii. ইহার ২টি ডিজিট ০, ১ দ্বারা ভোল্টেজের নিম্ন ও উচ্চ বুঝায়
১৫. অকটাল সংখ্যার ভিত্তি ৮, প্রতীক ৮টি (০১২৩৪৫৬৭)
১৬. দশমিক বা ডেসিম্যাল সংখ্যা পদ্ধতি ১০ ভিত্তিক ও মানুষের সংখ্যা
১৭. হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা পদ্ধতির ভিত্তি ১৬, ডিজিট প্রতীক ১৬টি, ইংরেজি বর্ণ ৬টি
১৮. 654 তে 6 এর স্থানীয় মান ডেসিম্যালে ৬০০, অক্টালে ৩৮৪, হেক্সায় ১৫৩৬
১৯. MSD = Most Significant Digit
LSD = Least Significant Digit
LSB = Least Significant Bit
MSB = Most Significant Bit
২০. 101 সংখ্যাটি হতে পারে বাইনারি, ডেসিম্যাল, অক্টাল, হেক্সাডেসিমেল
২১. 710 সংখ্যাটি হতে পারে ————–
২২. 678 সংখ্যাটি হতে পারে —————–
২৩. 2BAD.8C সংখ্যাটি হতে ————–
২৪. 0 এবং 1 অঙ্ক দু’টির প্রত্যেকটির bit = Binary Digit
২৫. ১টি বর্ণ বা 1 Character =8 bit =1Byte =8Binary Digit
২৬. অক্টাল সংখ্যা পদ্ধতিতে
i. ছোট অঙ্ক 0 ii. বড় অঙ্ক 7 iii. 8 অক্টালের একটি মৌলিক চিহ্ন নয়
২৭. Hexadecimal সংখ্যা পদ্ধতিতে
i. ছোট অঙ্ক 0 ii. বড় অঙ্ক F iii. 3D হেক্সাডেসম্যাল হতে পারে
২৮. বাইনারিতে 1 এর পরে 10 হবে
২৯. 1এর সাথে 1 যোগ করলে Binary পদ্ধতিতে 10 হবে
৩০. 111 এর পরের সংখ্যাটি বাইনারি পদ্ধতিতে ————- হবে
৩১. অক্টালে 7 এর পরে 10 হবে
৩২. 7 এর সাথে 1 যোগ করলে Octal পদ্ধতিতে 10 হবে
৩৩. 77 এর পরের সংখ্যাটি অক্টাল পদ্ধতিতে ——– হবে
৩৪. 177 এর পরের সংখ্যাটি অক্টাল পদ্ধতিতে 200 হবে
৩৫. হেক্সায় F এর পরে 10 হবে
৩৬. 1F এর সাথে 1 যোগ করলে Hexadecimal পদ্ধতিতে ——- হবে
৩৭. 4, 8, C ধারার পরবর্তী পদ 10 হবে
৩৮. 3, 6, 9, C ধারার পরবর্তী পদ ———– হবে
৩৯. 1, 8, F ধারার পরবর্তী পদ ——————- হবে
৪০. 9F এর পরের সংখ্যার পরবর্তীটি Hexadecimal এ ——— হবে?
৪১. EFF এর পরের সংখ্যার পরবর্তীটি Hexadecimal এ ——- হবে
৪২. ডেসিম্যাল থেকে বাইনারি, অক্টাল, হেক্সাডেসিমেল করতে 2,8,16 দিয়ে ভাগ
৪৩. বাইনারি, অক্টাল, হেক্সাডেসিমেল থেকে ডেসিম্যাল করতে 2,8,16 দিয়ে গুণ
৪৪. ডেসিম্যাল থেকে হেক্সাডেসিমেল সংখ্যা তৈরির জন্য
i. প্রতিবার ১৬ দিয়ে ভাগ করতে হয়
ii. ভাগশেষকে নিচের দিক থেকে সাজাতে হয়
iii. ১৬ দিয়ে গুণ করতে হয় ভগ্নাংশের ক্ষেত্রে
৪৫. বাইনারি সংখ্যাকেঅকটাল করার জন্য
i.প্রতি তিনটি বিট একত্রে নিয়ে ছোট ছোট গ্রুপ করতে হয়
ii.ডান দিক থেকে তিনটি করে বিট সাজিয়ে বাঁ দিকে আসতে হয় পূর্ণ সংখ্যার
iii.বাঁ দিক হতে তিনটি করে বিট সাজাতে হয় ভগ্নাংশের ক্ষেত্রে
৪৬. অক্টাল সংখ্যাকে ডেসিম্যাল করার জন্য
i. প্রতিটি ডিজিটকে ৮দিয়ে গুন করতে হয়
ii.ডান দিক থেকে 0 থেকে পাওয়ার দিয়ে বাঁ দিকে আসতে হয় পূর্ণ সংখ্যার
iii.বাঁ দিক হতে -1 পাওয়ার দিতে হয় ভগ্নাংশের ক্ষেত্রে
৪৭. (12)10 সংখ্যাটির বাইনারি = —————–
৪৮. (11011)2 এর ডেসিমেল মান ——————–
৪৯. (101101)2 এর অক্টাল মান ———————
৫০. (BFE)16 সংখ্যাটির অক্টাল মান ——————–
৫১. (77)8 সংখ্যাটির ডেসিম্যাল /দশমিক মান ——————
৫২. বাইনারি সংখ্যা ১০১০ মানের সমতুল্য মান
i. (A)16 ii. (10)10 iii. (12)8
৫৩. বাইনারি সংখ্যা ১১০১ এর মানের সমতুল্য মান —————————–
৫৪. (১১০১১০)২ সংখ্যার সমকক্ষ মান ————————————–
৫৫. (A)16+ (100)2 + (12)8 সমতুল্য মান —————————–
৫৬. (37.125)10 সংখ্যাটির বাইনারি মান 100101.001
৫৭. (31.15)10 সংখ্যাটির অক্টাল মান 37.11…..
৫৮. (100.9)10 সংখ্যাটির হেক্সাডেসিমেল মান 64.E6….
৫৯. (51.2)8 সংখ্যাটির বাইনারি মান 101001.010
৬০. (7B.2)16 সংখ্যাটির বাইনারি মান কত ———————–
৬১. (11011110.1)2 সংখ্যাটির হেক্সাডেসিমেল DE.8
৬২. (100101.101011)2 সংখ্যাটির হেক্সাডেসিমেল মান—————
৬৩. (1110.11)2 সংখ্যাটির হেক্সাডেসিমেল মান ————————–
৬৪. (31.15)8 এর হেক্সাডেসিমেল মান = 19.34
৬৫. (A0.2D)16 সংখ্যাটির অক্টাল মান ————————————–
৬৬. (AB.2C)16 সংখ্যাটির দশমিক মান = 171.172
৬৭. .২৫ দশমিক সংখ্যাকে বিভিন্ন রূপান্তর করলে (.৪)১৬ ii. (.০১)২ iii.(.২)৮
৬৮. .৫ বা .৫০ দশমিক সংখ্যাকে বিভিন্ন পদ্ধতিতে রূপান্তর করলে মান ———
৬৯. শুধু যোগ প্রক্রিয়ায় কমপিউটারে যোগ, বিয়োগ, গুণ ও ভাগ কাজ করা হয়
৭০. বাইনারি যোগে 1+1 =? অথবা 1+0+1 =10
৭১. বাইনারি সংখ্যা ১০০১০ + ১০১১ = ১১১০১
৭২. বাইনারি সংখ্যায় রোল ১১০১ এর সাথে ১০০১ যোগ করলে =
৭৩. কামালের বয়স (১০১১০১)২বছর, দশ বছর পর কত হবে =
৭৪. বাইনারিতে ১+১+১+১ এর যোগফল কত=
৭৫. (10001)2 + (7A)16 = ( )8
৭৬. ১০২ + ১০৮ + ১০১০ + ১০১৬ এর ডেসিমেল মান =
৭৭. (A)16 + (B)16+(C)16 এর বাইনারি মান =
৭৮. বাইনারি সংখ্যা ১১০০১ থেকে ১১১১ এর বিয়োগফল =১০১০
৭৯. একজন শিক্ষার্থী যোগ করলো (1011.11)2+ (1101.10)2 = (11011.11)2 সঠিক যোগফল থেকে কত বেশী লিখলো?
৮০. চিহ্নযুক্ত সংখ্যার জন্য ৪বিট বা ৮বিট সংখ্যার সর্বোবামের বিট
i. 0 হলে ধনাত্মক ii.1 হলে ঋণাত্মক
iii.0, 1 অতিরিক্ত বিট হিসেবে কাজ করে
৮১. (00000101)2 সংখ্যাটির সাংখ্যিক মান +5
৮২. (10000101)2 সংখ্যাটির সাংখ্যিক মান -5
৮৩. 01010101 সংখ্যাটি ধনাত্মক নাকি ঋণাত্মক
৯০. নিচের কোন সংখ্যাটি ঋণাত্মক?
11001 1010101 0011001 10101101
৯১. ৮বিট রেজিস্টারে সর্বোচ্চ ২৫৬টি মান থাকে
৯১. ৮বিট রেজিস্টারে সর্বোচ্চ ২৫৫ পর্যন্ত মান থাকে
৯১. চিহ্ন বিটসহ ৮বিট রেজিস্টারে সর্বোচ্চ ধনাত্মক মান +১২৭
৯১. চিহ্ন বিটসহ ৮বিট রেজিস্টারে সর্বোচ্চ ঋণাত্মক মান -১২৮
৯২. ২’র পরিপূরক সম্পর্কে
বাইনারি মান ০ ও ১ একটিকে অন্যটির পূরক বলে
দশমিক সংখ্যার বাইনারি মান ৮বিট করার পর উল্টালে হয় ১’র পরিপূরক
১’র পরিপূরক এর সাথে ১ যোগ করলে হয় ২’র পরিপূরক, ইহা ঋণাত্মক সংখ্যা
কোনো সংখ্যার ঋণাত্মক বৈজ্ঞানিক মান বা কম্পিউটারের মান ২’র পরিপূরক
৯৩. একই সংখ্যার ধনাত্মক ও ঋণাত্মক যোগ করলে ০ হবে ২’র পরিপূরকে
৯৩. একই সংখ্যার ধনাত্মক ও ঋণাত্মক যোগ করলে ০ হবে না ১’র পরিপূরকে
৯৪. (-42)10 সংখ্যাটি উপস্থাপনায় গঠন হলো
i.প্রকৃত মান ii. ১’র পরিপূরক iii. ২’র পরিপূরক
৯৫. (-42)10 সংখ্যাটিরবাইনারি মান হতে পারে
i.10101010 ii.11010101 iii.11010110
৯৬. (12)10 এর 2’s complement হবে (১১১১০১০০)২
৯৭. (৫)১০এর ২’র পরিপূরক কত হবে? /(-৫)১০এর বাইনারি মান কত হবে——–
৯৮. (১০)১০ থেকে (৮)১০ এর বিয়োগফল ২’র পরিপূরক পদ্ধতিতে ——– হবে
৯৯. (-১০)১০ থেকে (-৮)১০ এর বিয়োগফল ২’র পরিপূরক পদ্ধতিতে ——– হবে
১০০. (-১০)১০ও (-৮)১০ এর যোগফল 2’s Complement এ হবে———–
১০১. মানুষের ভাষাকে কম্পিউটারের ভাষায় রূপান্তরের জন্য ব্যবহৃত চিহ্নই কোড
১০২. BCD = Binary Coded Decimal
১০৩. কোন কোড দশমিক সংখ্যাকে বাইনারি করে = BCD
১০৪. BCD (4) বিটের কোড
১০৫. BCD কোড দ্বারা তৈরি ইউনিক চিহ্ন সংখ্যা 16
১০৬. ৭২-এর BCD কোড হলো = ০১১১০০১০
১০৬. ৯৩-এর BCD কোড হলো = ———————-
১০৬. ৮৬-এর BCD কোড হলো = ———————
১০৭. Alpha Numeric কোড
i. EBCDIC ii.ASCII iii.UNICODE
১০৮. কোন কোড দ্বারা ইংরেজিকে মাইক্রো কম্পিউটারে অন্তর্ভূক্ত করেছে
i.EBCDIC ii.ASCII iii.UNICODE
১০৯. ১৯৬৫ সালে রবার্ট বিমার কর্তৃক আবিষ্কৃত ASCII = American Standard Code for Information Interchange
১১০. ASCII Code-এ মূল বিট সংখ্যা ৭
১১১. ASCII-7এর ইউনিক চিহ্ন বা অক্ষরের সংখ্যা ১২৮
১১২. Extended ASCII (প্যারিটি বিট সহ) বিট সংখ্যা ৮
১১৩. Extended ASCII বা ASCII-8 এর ইউনিক চিহ্ন ২৫৬টি
১১৪. ASCII কোড হচ্ছে
১ম ৩২টি যান্ত্রিক নিয়ন্ত্রণের
২য় ৩২টি চিহ্ন ও সংখ্যা
৩য় ৩২টি ইংরেজি আপার কেইস লেটার
শেষ ৩২টি ইংরেজি লোয়ারকেইস লেটার
১১৫. EBCDIC = Extended BinaryCoded Decimel Information Code
১১৬. ৮বিটের কোড = ASCII ও EBCDIC
১১৭. EBCDIC= BCD কোডের সাথে মিল রেখে তৈরি
৮বিটের কোড, ২৫৬ টি ইউনিক চিহ্ন তৈরি করে
আইবিএম কোম্পানি সংখ্যা ও বর্ণের জন্য এটি তৈরি করে
১৯৬৩-৬৪ সালে কাগজে গর্ত করে ইনপুট দেয়ার জন্য কাজে লাগতো
১১৮. বাংলা ভাষা UNICODE র অন্তর্ভূক্ত
১১৮. পৃথিবীর সব ভাষা UNICODE র অন্তর্ভূক্ত
১১৯. UNICODE ১৬ বিটের কোড
১২০. ১৯৯১ সালে UNICODE ২৪ টি ভাষার জন্য তৈরি হয়
১২১. UNICODE এ ৬৫৫৩৬ টি ইউনিক চিহ্নকে কোডভূক্ত করা হয়েছে
১২২. UNICODE সম্পর্কে
১৯৯১ সালে ২৪টি ভাষা নিয়ে তৈরি
২০২০ সাল পর্যন্ত ১৩তম সংস্করণে ১৫৪টি ভাষা স্থান পেয়েছে
প্রতিটি বর্ণের জন্য একটি ইউনিক কোড থাকে
UTF-8 UTF-16 ইউনিকোড সবচেয়ে জনপ্রিয়

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
প্রকাশকঃ আরিফ জামান, সম্পাদকঃ সাইফ হাসান, বার্তা সম্পদকঃ মাহবুবা রেহমান ©নিউজ অনলাইন বিডি, সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host R Web